সোমবার, ১৪ Jun ২০২১, ০২:০৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম:

Welcome To Our Website...

সাভারের বিরুলিয়ায় নারী নিযার্তনের বিচার না পেয়ে থানায় অভিযোগ

সাভারের বিরুলিয়ায় নারী নিযার্তনের বিচার না পেয়ে থানায় অভিযোগ

সাভার বিরুলিয়া ইউনিয়নের কাকাবো এলাকার শাহারা পারভীন স্বামীর আমীর চানের নিযার্তনের বিচার না পেয়ে গতকাল (৮ আগস্ট শনিবার)

সাভার থানায় অভিযোগ করেন।

কথিত স্বামী বিরুলিয়া ইউনিয়নের বাগ্নী বাড়ি এলাকার আব্দুল হামিদ খানের ছেলে মোঃ আমীর চান।

অভিযোগ বলেন আমার বিয়ের আগে আমার স্বামীর সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিলেন। এমতাবস্থায় বিগত প্রায় ০১(এক) বৎসর পৃর্বে আমার শ্বশুর-শ্বাশুরীর উপস্থিতিতে ইসলামী শরিয়ত মোতাবেক ও রেজিস্ট্রী কাবিন মুলে বিবাহ হয়।

বিবাহের কিছুদিন পর আমি জানিতে পারি যে,তাহার পূর্বের স্ত্রী এবং সন্তান রহিয়াছে।

একপর্যায়ে আমার উক্ত বিবাদী মাদক সেবক সহ নানা অপকর্মে জড়ীয়ে পরে এবং আমার নিকট যৌতুক দাবী করিয়া আমাকে শারীরিক ও মানসিক ভাবে নির্যাতন করিয়া আসিতেছিল।

উক্ত বিষয়ে আমার শ্বশুর-শ্বাশুরিদের জানাইলে তাহারা কোন কর্ণপাত করে না?

সর্বশেষ ০৮ মাস পূর্বে আমি গর্ভবস্থায় থাকাবস্থায় উক্ত বিবাদী তাহার পিতা ৩।মোঃ আব্দুল হামিদ (৬৫), এবং মাতা ৪। মোছাঃ জাবেদা (৫৬) এর কু-পরামর্শে আমার সহিত অহেতুক ঝগড়া বিবাদের সৃষ্টি করিয়া উক্ত বিবাদী সহ তাহার ভাই ৫। মোঃ আক্তার হোসেন (৩৫),আমাকে এলোপাথারী ভাবে মারপিট করিয়া
আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।

পরবর্তীতে তাহাদের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে আমি আমার পিতার বাড়ীতে চলে আসি।

পিতার বাড়ীতে থাকাবস্থায় আমার ছেলে মোঃ আব্দুল রহমান আয়ান জন্মগ্রহণ করে। সর্বশেষ ১৯/০৭/২০২০ ইং তারিখ দুপুর অনুমান ২.০০ ঘটিকার সময় বিবাদীকে ফোন দিয়ে আমাকে ও আমার সন্তানকে নিয়ে যেতে বললে সে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং তাহার সন্তানকে অস্বিকার করে। নানা সময় আমাকে যৌতুকের জন্য জোরপূর্বক ভাবে নির্যাতন করতে থাকে নিয়মিত।

এছাড়াও বিবাদী আমাকে নানা রকম ভয়-ভীতি ও হুমকি-ধামকি প্রদান করে।

বিবাদী আরোও হুমকি দিয়া বলে যে,উক্ত বিষয়ে বেশি বাড়াবাড়ি করলে কিংবা থানায় কোনো অভিযোগ করলে আমি ও আমার সন্তানকে প্রাণে শেষ করিয়া ফেলিবে।

বর্তমানে আমি আমার শিশু সন্তানকে নিয়ে আমার পিতার বাড়িতে মানবেতর জীবন যাপন করছি। উক্ত বিষয়ে আত্মীয়-সহিত আলোচনা করিয়া থানায় আসিয়া অবহিত করিতে বিলম্ব হইলাম।

খুজ নিয়ে জানা যায় আমীর চান একজন চিহ্নিত মাদক সেবন কারী। বিয়ে ও করেছেন কয়েকটি। আমীর চানের আপন চাচা মালেক ছিটার নামে পরিচিত। মালেক ছিটার ও বিয়ে করেছে একাধিক।

কথায় বলে নৌকার সামনের দিক যেদিকে যায় পিছন টাও সেই দিকে যায়। আমীর চানের বংশের অনেকেই একই নায়ের মাঝি।

অভিযোগ সুত্রে বিরুলিয়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এস আই অপুর্ব দত্ত কে কল দিলে তিনি বলেন। একজন নারী নিযার্তনের শিকার হয়ে সাভার মডেল থানায় ডায়েরি করেছেন তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিবেন।

এদিকে বিরুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জনাব সাইদুর রহমান সুজন সাহেবর সাথে কথা বললে তিনি বলেন শাহারা পারভীন আমার কাছে বিচার নিয়ে এসেছেন আমি আমীন চানের অভিবাবক কে জানিয়ে। তারা ঘুরি মুশি করে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019

Design BY POPULARHOSTBD