Main Menu

করোনা কেড়ে নিলো ভারতীয় ক্রিকেটারের প্রাণ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের তালিকায় এখন চার নম্বরে রয়েছে ভারত। সাড়ে ৫ লাখের বেশি করোনায় আক্রান্ত। মৃত্যুবরণ করেছে প্রায় সাড়ে ১৬ হাজার। এরই মধ্যে করোনা কেড়ে নিয়েছে ভারতের এক ক্রিকেটারের প্রাণ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সোমবার মৃত্যু বরণ করেছেন ভারতীয় ক্রিকেটে খুব পরিচিত মুখ, দিল্লির সাবেক ক্লাব ক্রিকেটার সঞ্জয় দোবাল। পরিবারের তরফে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়।

দিল্লির ক্লাব ক্রিকেটে সঞ্জয় ডোভাল ছিলেন খুবই পরিচিত নাম। ৫৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার দিল্লির অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সাপোর্ট স্টাফ হিসেবেও কাজ করেছিলেন। দীর্ঘিদিন দিল্লির ক্লাব ক্রিকেটে খেলার কারণে ভারতীয় ক্রিকেটে বেশ পরিচিত মুখ হয়ে উঠেছিলেন দোবাল। জাতীয় দলে খেলার সুযোগ না পেলেও, অনেক জাতীয় দলের ক্রিকেটারের চেয়েও বেশি পরিচিত ছিলেন তিনি।

মৃত্যুকালে স্ত্রী এবং দুই ছেলেকে রেখে যান দোবাল। বড় ছেলের নাম সিদ্ধান্ত, যিনি রাজস্থানের হয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেন। ছোট ছেলের নাম একানশ, যিনি দিল্লির অনূর্ধ্ব-২৩ দলের হয়ে অভিষেক করেছিলেন কিছুদিন আগে।

দিল্লি ডিস্ট্রিক্ট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (ডিডিসিএ) এক কর্মকর্তা পিটিআইকে জানান, ‘দোবালের করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছিল এক সপ্তাহ আগেই। প্রথমে তাকে বাহাদুরগড়ের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখানেই তার করোনা টেস্ট করার পর পজিটিভ রিপোর্ট আসে। তবে তার অবস্থার অবনতি হলে দ্বারকা হাসপাতালে নেয়া হয়। তাকে প্লাজমাও দেয়া হয়েছিল; কিন্তু সব চেষ্টা ব্যর্থ করে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলার পরিচিত ব্যক্তিত্ব ছিলেন দোবাল। বিরেন্দর শেবাগ, গৌতম গম্ভির, মিঠুন মাানহাসের মতো দিল্লির পরিচিত ক্রিকেটারদের মধ্যে বশ জনপ্রিয় ছিলেন তিনি। বিখ্যাত সনেট ক্লাবের হয়েও খেলেছিলেন দোবাল।

গৌতম গম্ভির, মানহাস তার চিকিৎসা সহযোগিতায় এগিয়ে আসেন। টুইটারে তারা প্লাজমা ডোনেট করার আহ্বান জানিয়ে পোস্ট করেছিলেন। পরে আম আদমি পার্টির এমএলএ দিলিপ পান্ডে ডোনার জোগাড় করে দিয়েছিলেন।

রঞ্জি ট্রফিতেও খেলার সুযোগ পাননি দোবাল। তবে, খেলা শেষ করার পর জুনিয়র ক্রিকেটারদের কোচিংয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। এছাড়া জামিয়ায় ভারত এবং ইংল্যান্ডের নারী ক্রিকেট দলের মধ্যকার টেস্টে স্থানীয় ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করেন দোবাল।






error: কপি করা নিষেধ !!
%d bloggers like this: